“বিশেষ দাবি নিয়ে অনলাইন স্মারকলিপি জমা করলেন পশ্চিমবঙ্গ যুবশ্রী এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্ক কর্মপ্রাথী সমিতি”

ইনজামামুল হক গাইন, দঃ ২৪ পরগনা-বুধবার “পশ্চিমবঙ্গ যুবশ্রী এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্ক কর্মপ্রার্থী সমিতি”র পক্ষ থেকে মুখ্যমন্ত্রী’র নিকট অনলাইনে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। সংগঠনের রাজ্য সভাপতি নির্মল মাঝি এক প্রেস বিবৃতিতে জানান, সম্প্রতি করোনা ভাইরাস বিশ্ব তথা আমাদের দেশে ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। দেশজুড়ে লকডাউন চলছে। বিভিন্ন সরকারি এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, স্কুল কলেজ এবং তাদের কার্যকলাপ পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এরপর আমফান ঝড়ের প্রকোপ এ চারিদিক বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে।

বর্তমানে করোনা ভাইরাস প্রকোপ এর ফলে সমস্ত প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় যুবশ্রী’দের প্রশিক্ষণ নেওয়া সম্ভবপর হচ্ছে না। উপরন্তু আমফান ঝড় হওয়ায় চারিদিক বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে। রাজ্যের বহু জায়গায় এখনো ইলেকট্রিক পরিষেবা ব্যাহত। অনেক জায়গায় ইন্টারনেট পরিষেবা সঠিক না থাকায় অনলাইনে নথিভূক্ত করা সম্ভব হয়ে উঠবে না। এইরূপ পরিস্থিতিতে যদি আগামী জুলাই থেকে Annexure-III ফর্মটি অনলাইনের মাধ্যমে জমা নেওয়া হয়। তাহলে যুবশ্রীদের Annexure-III ফর্ম টি নথিভূক্ত করতে গিয়ে অনেক অসুবিধার সম্মুখীন হতে হবে এবং রাজ্যের ছেলেমেয়েরা বিপাকের মধ্যে পড়বে। বেশির ভাগ শহর, গ্রামাঞ্চলে সাইবার ক্যাফ অর্থাৎ কম্পিউটারের দোকান গুলি বন্ধ। বর্তমান পরিস্থিতি কথা চিন্তা করে যদি জুলাই মাসে পরিবর্তে আগামী ২০২১ জানুয়ারী তে Annexure-III জমা নেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়, তাহলে, রাজ্যের প্রায় ১ লক্ষ্য ছেলে মেয়ে উপকৃত হবে এবং Social Distance Maintain বজায় থাকবে, কিছুটা হলেও করোনা ভাইরাসের কবল থেকে স্বস্তি পাবে।

এমতাবস্থায়, “পশ্চিমবঙ্গ যুবশ্রী এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্ক কর্মপ্রার্থী সমিতি”র পক্ষ থেকে মুখ্যমন্ত্রী’র কাছে অনলাইনে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এছাড়া অর্থমন্ত্রী, শ্রমমন্ত্রী সহ রাজ্য তথা প্রতিটি জেলার অর্থ দপ্তর, শ্রমদপ্তর, Exchange Office সমস্ত দপ্তরেও দাবীপত্রের প্রতিলিপি পেশ করা হয়। জুলাই মাসে প্রশিক্ষণ প্রমাণপত্র সহ Annexure III বিষয়টি আপাতত স্থগিত রেখে আগামী 2021 সালের জানুয়ারি মাসে কার্যকর করলে রাজ্যের সকল যুবশ্রী বিশেষ উপকৃত হবে। এছাড়া মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী যুবশ্রী’দের স্থায়ী কর্মসংস্থানের দাবী বিষয়টি পুনরায় পেশ করা হয়।